অনুবাদের নিয়ম বা সার্থক অনুবাদের জন্য প্রয়োজনীয় নিয়ম | নির্মিতি | ভাষা ও শিক্ষা

অনুবাদের নিয়ম বা সার্থক অনুবাদের জন্য প্রয়োজনীয় নিয়ম | নির্মিতি | ভাষা ও শিক্ষা , অনুবাদ করার সময় নিচের বিষয়গুলোর দিকে লক্ষ রাখতে হয় :

অনুবাদের নিয়ম বা সার্থক অনুবাদের জন্য প্রয়োজনীয় নিয়ম | নির্মিতি | ভাষা ও শিক্ষা

১. প্রথমেই মূল অংশটি বারবার পড়ে এর সঠিক অর্থ বোঝা প্রয়োজন। একই শব্দ নানা অর্থ প্রকাশ করতে পারে। তাই কোন শব্দে কোন অর্থে ব্যবহার করা হয়েছে তা ভালোভাবে বুঝে নেয়া প্রয়োজন।

 

অনুবাদের নিয়ম বা সার্থক অনুবাদের জন্য প্রয়োজনীয় নিয়ম | নির্মিতি | ভাষা ও শিক্ষা

 

২. হুবহু শাব্দিক বা আক্ষরিক অনুবাদ করলে অনুবাদ যথার্থ হবে না। ভাষা শুদ্ধ ও সহজসাধ্য না হলেও অনুবাদ হবে না।

৩. সফল অনুবাদের জন্য যে ভাষা থেকে অনুবাদ করা হয় এবং যে ভাষায় অনূদিত হবে উভয় ভাষার অন্তর্নিহিত গঠনকৌশলসহ যাবতীয় বিষয় সম্পর্কে অনুপুঙ্খ ধারণা থাকতে হবে।

৪. মূল ভাষা ও অনূদিত ভাষার গঠনশৈলী, শব্দভাণ্ডার, প্রবাদ-প্রবচন অর্থাৎ ব্যাকরণের খুঁটিনাটি বিষয় সম্পর্কে সম্যক ধারণা থাকা প্রয়োজন ।

৫. অনুবাদের শেষে অনুবাদটি বার বার পড়ে দেখা উচিত— যেন তা সত্যই বাংলা শোনায় ।

 

অনুবাদের নিয়ম বা সার্থক অনুবাদের জন্য প্রয়োজনীয় নিয়ম | নির্মিতি | ভাষা ও শিক্ষা

 

ভাষান্তর বা অনুবাদ একটি ভাষা থেকে অন্য আরেকটি ভাষায় পরিকল্পনাগত রূপান্তর প্রক্রিয়া। ভাষার অনুবাদে দুটি ভাষার মধ্যে যে ভাষা থেকে অনুবাদ করা হয় তাকে “উৎস ভাষা”, এবং যে ভাষায় অনুবাদ করা হচ্ছে তাকে “লক্ষ্য ভাষা” বলা হয়। অর্থাৎ উৎস ভাষা থেকে লক্ষ্য ভাষায় ভাষাগত উপাদান এবং যোগ্যতার (বিষয়, বক্তব্য, ভঙ্গি ইত্যদি) দ্বারা পাঠ নির্ণয় করার রূপান্তরের প্রক্রিয়াই ‘ভাষানুবাদ’।

 

অনুবাদের নিয়ম বা সার্থক অনুবাদের জন্য প্রয়োজনীয় নিয়ম | নির্মিতি | ভাষা ও শিক্ষা

 

একজন অনুবাদক সর্বদা অসাবধানতাবশত উৎস-ভাষা শব্দ, ব্যাকরণ, বা বাক্যবিন্যাস লক্ষ্য-ভাষা রেন্ডারিং-এ প্রবর্তনের ঝুঁকি নিয়ে থাকেন। অন্যদিকে, এই ধরনের “স্পিল-ওভার” কখনও কখনও দরকারী উৎস-ভাষা ক্যাল্ক এবং লোনওয়ার্ড আমদানি করেছে যা লক্ষ্য ভাষাগুলিকে সমৃদ্ধ করেছে। অনুবাদকরা, পবিত্র গ্রন্থের প্রথম দিকের অনুবাদক সহ, তারা যে ভাষায় অনুবাদ করেছেন সেই ভাষাগুলিকে রূপ দিতে সাহায্য করেছেন।

অনুবাদ প্রক্রিয়ার শ্রমসাধ্যতার কারণে, ১৯৪০ সাল থেকে অনুবাদকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বা যান্ত্রিকভাবে মানব অনুবাদককে সহায়তা করার জন্য বিভিন্ন মাত্রার সাফল্যের সাথে প্রচেষ্টা করা হয়েছে। অতি সম্প্রতি, ইন্টারনেটের উত্থান অনুবাদ পরিষেবার জন্য একটি বিশ্বব্যাপী বাজার গড়ে তুলেছে এবং “ভাষা স্থানীয়করণ” সহজতর করেছে।

আরও দেখুন:

“অনুবাদের নিয়ম বা সার্থক অনুবাদের জন্য প্রয়োজনীয় নিয়ম | নির্মিতি | ভাষা ও শিক্ষা”-এ 3-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন