বিজ্ঞান মেলা রচনা । Essay on Science fair । প্রতিবেদন রচনা

বিজ্ঞান মেলা রচনাঃ বিদ্যালয়ে বিজ্ঞানের যেসব তত্ত্ব ও তথ্য পড়ানো হয় তার আলোকে শিক্ষার্থীরা বাস্তব জীবনে দৈনন্দিন কাজে সহজে প্রয়োগ যোগ্য উদ্ভাবনী মূলক যন্ত্র বা প্রযুক্তি তৈরি করে বৎসরের নিদিষ্ট সময়ে সপ্তাহব্যাপী যে প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হয় তাকে বিজ্ঞান মেলা বলে।

বিজ্ঞান মেলা রচনা । Essay on Science fair
বিজ্ঞান মেলা রচনা । Essay on Science fair

বিজ্ঞান মেলা রচনা

ভূমিকা :

একটি বিজ্ঞান মেলা মানে সেই মেলা যেখানে বৈজ্ঞানিক সরঞ্জাম, সরঞ্জাম, যন্ত্র বা মেশিন প্রদর্শন করা হয়। এই ধরনের মেলা আমাদের প্রত্যেকের জন্য বৃহত্তর আকর্ষণ প্রয়োগ করে। আমার নাগালের মধ্যে এই ধরনের মেলা যেখানে সাজানো হয়েছে সেখানে যাওয়ার সুযোগ আমি কখনই হারাই না।

বিজ্ঞান মেলার গুরুত্ব :

বিজ্ঞান মেলার গুরুত্ব অপরিসীম। এটি তরুণ প্রজন্মকে বিজ্ঞানের পথে নিয়ে যায়। এটি তাদের নতুন এবং নতুন জিনিস উদ্ভাবন করতে উত্সাহিত করে। তরুণ মন সর্বদা বৈজ্ঞানিক জ্ঞান দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়। এ ধরনের মেলার আয়োজন করা গেলে আমাদের তরুণ প্রজন্ম বৈজ্ঞানিক প্রযুক্তিগুলোকে কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ করার সুযোগ পাবে। শুধু তাই নয়, এই মেলার অনেক ব্যবসায়িক কদর রয়েছে। তাই এ ধরনের মেলার আয়োজন করা উচিত প্রতিনিয়ত।

মেলার উপলক্ষ ও স্থান :

গত সপ্তাহে, আমি ঢাকা বিজ্ঞান জাদুঘর কর্তৃক জাতীয় বিজ্ঞান সপ্তাহ উপলক্ষে ঢাকায় আয়োজিত একটি বিজ্ঞান মেলায় গিয়েছিলাম। এই মেলায় আমি খুবই মজা পেয়েছি। বিজ্ঞানের জাদু দেখার সুবর্ণ সুযোগ পেলাম। যতক্ষণ আমি সেখানে সময় অতিবাহিত করেছি, আমি অনুভব করেছি যে আমি বৈজ্ঞানিক জ্ঞানের বিশাল দিগন্তে প্রবেশ করছি, এটি আমার জ্ঞানকে খুলে দিয়েছে এবং আমি গভীর মনোযোগ এবং ঘনিষ্ঠতার সাথে সবকিছু পর্যবেক্ষণ করছিলাম।

বিজ্ঞান মেলা রচনা । Essay on Science fair
বিজ্ঞান মেলা রচনা । Essay on Science fair

সামগ্রিক ব্যবস্থা :

এই মেলা উপলক্ষে কর্তৃপক্ষ একটি সুষ্ঠু ও ন্যায়সঙ্গত ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। আশেপাশের জায়গাটি সুন্দরভাবে সাজানো হয়েছিল। দুটি প্রবেশপথ ছিল। প্যান্ডেলের ভিতরে সবকিছু সুষ্ঠুভাবে সাজানো ছিল। সেখানে বিভিন্ন সমিতি বা কোম্পানির স্টল ছিল। সেখানে দর্শনার্থীদের সময় কাটানোর জন্য খোলা জায়গা রয়েছে।

নিরাপত্তা যথেষ্ট ছিল। যোগাযোগ ভাল ছিল. প্রদর্শনীগুলি এমনভাবে সাজানো হয়েছিল যাতে দর্শনার্থীরা কোনও অসুবিধা ছাড়াই তাদের প্রতিটিতে পৌঁছাতে এবং দেখতে পারে। আলো ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার সুব্যবস্থা ছিল। আমি এই সব ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ সত্যিই সন্তুষ্ট ছিল.

প্রদর্শনীকৃত জিনিস :

মেলায় অসংখ্য বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি সম্বলিত বিভিন্ন স্টল ছিল। দেখলাম মোটর কার, ট্রেন, জাহাজ, অ্যারো প্লেন ইত্যাদির মডেল, এক্স-রে মেশিন, বিভিন্ন অস্ত্রোপচারের যন্ত্রপাতি সেখানে সুচারুভাবে সাজানো। পাটের ফাইবার এবং পাটের ডাঁটার পণ্যও ছিল যা আমার কাছে আরও বেশি ব্যবহারিক মূল্য বলে মনে হয়েছিল।

গত সপ্তাহে ঢাকায় অনুষ্ঠিত বিজ্ঞান মেলা ছিল চিত্তাকর্ষক। দেশ-বিদেশের দর্শনার্থীরা এখানে বেড়াতে আসেন। সবচেয়ে মজার বিষয় ছিল আমাদের স্থানীয় বিজ্ঞানী দ্বারা একটি মোটর কার তৈরি করা। পেট্রোলের বদলে সরিষার তেল দিয়ে চলবে এই মোটর কার। আমাদের সমস্ত স্থানীয় দর্শনার্থীরা সেখানে উপস্থিত এই বিজ্ঞানীর অত্যন্ত প্রশংসা করেছেন।

এমনকি বিদেশী দর্শনার্থীরাও আমাদের তরুণ বিজ্ঞানীর প্রশংসা করেছেন। তবে অন্য কিছু বিজ্ঞানীও সেখানে তাদের উদ্ভাবন প্রদর্শন করেছিলেন। গলদা চিংড়ির ক্রাস্ট থেকে অস্ত্রোপচারের সুতো তৈরি, সবচেয়ে সস্তা ধান মাড়াই, রিমোট কন্ট্রোল লাইট ছিল সেখানে প্রদর্শন করা আরেকটি আকর্ষণীয় জিনিস।

বিজ্ঞান মেলার জনপ্রিয়তা :

বিজ্ঞান মেলা দিন দিন আরও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। আমাদের জনগণ এটি দ্বারা অত্যন্ত অনুপ্রাণিত হচ্ছে। এর গুরুত্ব অনুধাবন করে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন সংগঠন প্রতিবছর এ আয়োজনের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

বিজ্ঞান মেলা রচনা । Essay on Science fair
বিজ্ঞান মেলা রচনা । Essay on Science fair

 

আমার দেখা কিছু ত্রুটি :

আমি সেই মেলা দেখে খুব মুগ্ধ হয়েছিলাম। আমি সেখানে কোন স্পষ্ট ত্রুটি দেখিনি। কিন্তু পর্যাপ্ত জায়গার অভাব এবং উচ্চ প্রবেশ ফি আমার জন্য বিরক্তিকর ছিল। এমনকি বিদেশী প্রতিষ্ঠানের প্রদর্শনীরও অভাব ছিল সেখানে।

উপসংহার :

বিজ্ঞান আমাদের জন্য বিশাল উপকার করেছে। এবং বিজ্ঞান মেলা আমাদের নিজের চোখে বিজ্ঞানের বানান পর্যবেক্ষণ করার সুযোগ দিতে পারে। এভাবে আমাদের দেশের উন্নতির জন্য এই মেলার আয়োজন করা উচিত।

আরও পড়ুনঃ

 

“বিজ্ঞান মেলা রচনা । Essay on Science fair । প্রতিবেদন রচনা”-এ 2-টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন